মহাকাশ বিজ্ঞান

মহাবিশ্বের অন্তিম পরিণতি–৮, নিউটনের অনুমিত মহাবিশ্ব এবং অলবার্সের প্যারাডক্স

পূর্ববর্তী পর্বটি পড়তে পারেন এখানে – মহাবিশ্বের অন্তিম পরিণতি–৭, গ্র‍্যাভিটেশনাল লেন্সিং ও স্পেইস-টাইমের সম্প্রসারণ হ্যাঁ, এইবার মহাবিশ্বের “মডেল” নিয়ে আলোচনা করার উপযুক্ত সময় এসেছে। মহাবিশ্বের মডেল মানে হচ্ছে এমন একটি মহাবিশ্বের নমুনা যেখানে আমাদের জানা মহাবিশ্বের সব বৈশিষ্ট্যের পাশাপাশি কিছু যৌক্তিক অনুমানও থাকে, ভবিষ্যতে এইসব অনুমান অনেক রকম পরীক্ষার মাধ্যমে সত্যায়িত হলে তখন “মডেল”টা “থিয়োরি”ও …

মহাবিশ্বের অন্তিম পরিণতি–৮, নিউটনের অনুমিত মহাবিশ্ব এবং অলবার্সের প্যারাডক্স Read More »

মহাবিশ্বের প্রতীকী ছবি

মহাবিশ্বের অন্তিম পরিণতি–৭, গ্র‍্যাভিটেশনাল লেন্সিং ও স্পেইস-টাইমের সম্প্রসারণ

পূর্ববর্তী লেখাটি না পড়ে থাকলে পড়তে পারেন এখানে- মহাবিশ্বের অন্তিম পরিনতি-৬, রেড শিফট ও তরঙ্গ কথন বহির্জাগতিক বস্তু থেকে আসা আলোর বর্ণালীতে কালো দাগের উপস্থিতির কথা জ্যোতির্বিদরা বহু আগে থেকেই জানতেন। জার্মান পদার্থবিদ জোসেফ ভন ফ্র‍্যাউইনহোফার (১৭৮৭-১৮২৬) সূর্য থেকে আসা আলোর বর্ণালীতে এমন কালো দাগ খুঁজে পেয়েছিলেন। ইংরেজ রসায়নবিদ উইলিয়াম হাইড ওলাস্টনও (১৭৬৬-১৮২৮) ১৮০২ সালে …

মহাবিশ্বের অন্তিম পরিণতি–৭, গ্র‍্যাভিটেশনাল লেন্সিং ও স্পেইস-টাইমের সম্প্রসারণ Read More »

মহাবিশ্বের অন্তিম পরিণতি–৬, রেড শিফট ও তরঙ্গ কথন

পূর্ববর্তী লেখাটি পড়ে না থাকলে পড়ে আসুন এখান থেকে – মহাবিশ্বের অন্তিম পরিনতি-৫, মহাবিশ্বের প্রসারণ জ্যোতির্বিদ এডউইন হাবল কীভাবে বুঝলেন গ্যালাক্সিগুলো একে অন্যের কাছ থেকে পালাচ্ছে? আসলে এক্ষেত্রে তিনি দূর গ্যালাক্সি থেকে আসা আলোর লাল সরণ (Red shift) পর্যবেক্ষণ করেছিলেন। কী এই লাল সরণ? বুঝতে হলে আমাদেরকে আগে “ডপলার ইফেক্ট” সম্পর্কে জানতে হবে। আসুন জেনে …

মহাবিশ্বের অন্তিম পরিণতি–৬, রেড শিফট ও তরঙ্গ কথন Read More »

মহাবি

মহাবিশ্বের অন্তিম পরিণতি–৫, মহাবিশ্বের প্রসারণ

পূর্ববর্তী লেখা না পড়ে থাকলে পড়ে আসুন এখান থেকে- মহাবিশ্বের অন্তিম পরিনতি-৪, অ্যান্ড্রোমিডা, গ্যালাক্সিপাড়ার বড়দি মার্কিন জ্যোতির্বিদ এম. এল. হিউমাসন, তিনি ডপলার ইফেক্ট ব্যবহার করে অনেকগুলো মহাজাগতিক বস্তু পর্যবেক্ষণ করেছিলেন। পরে বিজ্ঞানী এডউইন হাবল জোরালোভাবে প্রমাণ করেন, এই আবছা বস্তুগুলোর বেশিরভাগই একেকটা আস্ত গ্যালাক্সি। এরকম একেকটা গ্যালাক্সির মাঝে বিলিয়ন বিলিয়ন নক্ষত্রের বাস। গ্যালাক্সিগুলো আমাদের থেকে …

মহাবিশ্বের অন্তিম পরিণতি–৫, মহাবিশ্বের প্রসারণ Read More »

নক্ষত্র

নক্ষত্র জগৎ

নক্ষত্র বিশাল, তাই গ্র‍্যাভিটিও বেশি, চাপ আর তাপমাত্রাও বেশি বেশি, ব্যাস, শুরু হয়ে গেল নিউক্লিয়ার ফিউশন! কখন শুরু হলো? ঠিক যখন তাপমাত্রা ১ কোটি কেলভিনে গিয়ে ঠেকল! নক্ষত্রের মূল উপাদান হিসেবে থাকে হাইড্রোজেন। প্রচণ্ড প্রেশারে হাইড্রোজেনের পরমাণুগুলো কাছাকাছি আসে। • দুটো হাইড্রোজেন নিউক্লেই বিক্রিয়া করে দুটো ডিউটেরিয়ামে পরিণত হয়। একইসাথে তৈরি হয় একটি করে পজিট্রন …

নক্ষত্র জগৎ Read More »

রেড শিফট, সম্প্রসারণশীল মহাবিশ্বের ডাকপিওন

‘আলো’কে পিস পিস করলে অনেক সাইজ পাওয়া যাবে। আমাদের কাছে এক্কেবারে আদর্শ, এক্কেবারে মিডিয়াম সাইজ হলো সবুজ আলো। মিডিয়াম সাইজ থেকে আলো যত বড়ো হবে, ততই রং চেইঞ্জ হতে থাকবে। মিডিয়াম থেকে সাইজ একটু বড়ো হলে হলুদ, আরেকটু বড়ো হলে কমলা, কমলার চেয়ে বড়ো হলে লাল। লালের চেয়ে বড়ো হলে সেই সাইজ আমরা দেখতে পাবো …

রেড শিফট, সম্প্রসারণশীল মহাবিশ্বের ডাকপিওন Read More »

মহাজাগতিক বস্তুমাত্রই কি কলুর বলদ?

ছবির মতো ছিমছাম সবকিছু, সবাই নিজ নিজ কক্ষপথে বিরতিহীন ঘুরে চলেছে। উপগ্রহ ঘুরছে গ্রহকে ঘিরে, গ্রহ ঘুরছে নক্ষত্রকে ঘিরে। নক্ষত্রও ঘুরছে সুপারম্যাসিভ ব্ল্যাকহোলকে ঘিরে। আসলেই মহাবিশ্বের স্ট্রাকচার এত নিখুঁত হলো কীভাবে? বা আমরা যতটা নিখুঁত ভাবছি আদৌ কি মহাবিশ্ব ততটাই নিখুঁত? চলুন এটা নিয়ে আজ আলোচনা করি… ঘানি টানা দেখেছেন নিশ্চয়ই? গরুর কাঁধে একটা জোয়াল …

মহাজাগতিক বস্তুমাত্রই কি কলুর বলদ? Read More »

মহাবিশ্বের অন্তিম পরিণতি–৪, অ্যান্ড্রোমিডা, গ্যালাক্সিপাড়ার বড়দি

পূর্ববর্তী লেখাটি না পড়ে থাকলে পড়তে পারেন এখান থেকে- মহাবিশ্বের অন্তিম পরিণতি–৩, মিল্কিওয়ে গ্যালাক্সি, আমাদের নক্ষত্রবাড়ি জন্মবৃত্তান্ত : আজ থেকে প্রায় ১ হাজার কোটি সাল (১০,০০০,০০০,০০০) আগের কথা, মহাকাশের কোল জুড়ে জন্ম নিয়েছিল একটা গ্যালাক্সি। কয়েকটা প্রোটোগ্যালাক্সির রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ এবং সংঘর্ষ পরবর্তী মিলনের ফলে এর গোলাকার চাকতি তৈরি হয় এবং গ্যালাক্টিক হ্যালো এর চারপাশে ছড়িয়ে …

মহাবিশ্বের অন্তিম পরিণতি–৪, অ্যান্ড্রোমিডা, গ্যালাক্সিপাড়ার বড়দি Read More »

পাশাপাশি দুটি গ্যালাক্সি

মহাবিশ্বের অন্তিম পরিণতি–১, এই যাত্রার শেষ কোথায়?

মেঠোপথ ছেড়ে হাইওয়েতে উঠে এলো এক নিঃসঙ্গ মুসাফির। দুদিকের প্রান্তহীন সড়ক যেন দিগন্তে গিয়ে মিশেছে। মুসাফিরের ক্লান্ত শ্রান্ত চোখে মুহূর্তেই মলিনতা ছাপিয়ে ফুটে উঠল বিস্ময়। হাঁটতে হবে বহুদূর। মুখ থেকে আপনা-আপনি বেরিয়ে এলো স্বগতোক্তি–এই যাত্রার শেষ কোথায়? জগৎ চলছে আপনতালে, পৃথিবী ঘুরছে, সূর্য কিরণ দিচ্ছে, চাঁদ হাসছে। আর আমরা ভাবছি। আমাদের মস্তিস্কে আলোড়ন তুলছে আদিম …

মহাবিশ্বের অন্তিম পরিণতি–১, এই যাত্রার শেষ কোথায়? Read More »

মিল্কিওয়ে গ্যালাক্সি

মহাবিশ্বের অন্তিম পরিণতি–৩, মিল্কিওয়ে গ্যালাক্সি, আমাদের নক্ষত্রবাড়ি

পূর্ববর্তী লেখাটি না পড়ে থাকলে পড়ুন এখান থেকে- মহাবিশ্বের অন্তিম পরিনতি-২, মহাবিশ্ব মাপার ফিতে রাতের পরিষ্কার আকাশ যেন সৌন্দর্যের এক অফুরন্ত ভান্ডার! কী নেই সে আকাশে? হাজার হাজার তারার নীলমণি যেন জ্বলছে-নিভছে! একটু খেয়াল করলে দেখা যাবে, হালকা স্বচ্ছ মেঘের মতো একটা আলোকিত রাস্তা মধ্য আকাশের বুক চিরে বয়ে গেছে। এটিই আমাদের মিল্কিওয়ে গ্যালাক্সি। খালি …

মহাবিশ্বের অন্তিম পরিণতি–৩, মিল্কিওয়ে গ্যালাক্সি, আমাদের নক্ষত্রবাড়ি Read More »

মহাবিশ্বের অন্তিম পরিণতি–২, মহাবিশ্ব মাপার ফিতে

পূর্ববর্তী পর্ব পড়তে পারেন এখান- মহাবিশ্বের অন্তিম পরিণতি–১, এই যাত্রার শেষ কোথায়? আপনি নিশ্চয়ই সিলেট থেকে ঢাকার দূরত্বটা ইঞ্চিতে মাপতে চাইবেন না। এই দূরত্ব মাপতে হলে আপনাকে কিলোমিটার বা মাইলে মাপতে হবে। কারণ পরিসর যত বেশি তার পরিমাপের একক তত বড়ো হতে হবে, তবেই মাপতে সুবিধে। জ্যোতির্বিদ্যার পরিসর আমাদের চেনাজানা পরিবেশ থেকে অনেক অনেক বড়ো। …

মহাবিশ্বের অন্তিম পরিণতি–২, মহাবিশ্ব মাপার ফিতে Read More »

বামন গ্রহ প্লুটো

গ্রহের গল্প: বামন গ্রহ প্লুটো

নীল গ্রহ নেপচুন থেকে অনেক আগেই তল্পিতল্পা গুটিয়ে ফেলতে হয়েছে।’নীল নীল নীলাঞ্জনা’ গানটা গেয়েও তেমন ফল মেলেনি।বুকে ভোলাগঞ্জের বিশাল পাথর বেঁধে এবার রওনা দিলে বামন গ্রহ প্লুটো এর দিকে। শুভ যাত্রা!🙂 কুইপার বেল্টের হাজারটা জঞ্জাল পাড়ি দিয়ে যখন তুমি প্লুটো এর কাছে পৌঁছালে তখন মনের মধ্যে কীরকম জানি কু ডাক শুরু হলো। পাতালপুরীর এ দেবতার …

গ্রহের গল্প: বামন গ্রহ প্লুটো Read More »