কন্টেন্ট মার্কেটিং

৬ টি কন্টেন্ট মার্কেটিং ফর্মুলা: বিট দ্য এসইও ইন 2020

ব্লগের জন্য একটা আর্টিকেল লিখা সহজ।

কিছু রিসোর্স সংগ্রহ, ইনফরমেশন সংগ্রহ করে ভালো করে সহজে লিখতে পারবেন।

কিন্তু, আর্টিকেল লিখার পর বা একটা কন্টেন্ট ক্রিয়েট করার পর আপনার কাজ কী?

একটা কথা বলে দেই, কন্টেন্ট তৈরি করার পর, ওয়েবসাইট এ পোস্ট করার পর অনেক মানুষ “মার্কেটিং” কথাটি ভুলে যায়! অনেকে কন্টেন্ট তৈরি করার পর কন্টেন্ট মার্কেটিং বা প্রোমোট করে না। বা সেটার মার্কেটিং করে না।

শুধু এসইও করেই আপনার কাজ শেষ না। কন্টেন্ট মার্কেটিং করতে হবে।

এই আর্টিকেল এ আমি কন্টেন্ট মার্কেটিং করার কিছু ফর্মুলা নিয়ে আলোচনা করব৷

এখানে বলা কন্টেন্ট মার্কেটিং এর ধাপগুলো বেশ জটিল না কিন্তু। মাত্র ৬ টি ধাপে করতে হবে।
তো চলুন দেখে আসি স্টেপগুলো কী কী।

ধাপ-১: টাইটেল অপটিমাইজ করুন

প্রতি ১০ জনের মধ্যে ৮ জন ভিজিটর টাইটেল দেখে ব্লগ পড়ার সিদ্ধান্ত নেয়। সুতরাং, আর্টিকেল বা কন্টেন্ট এর টাইটেল যদি আকর্ষণীয় না হয়, তাহলে বিরাট অংকের ভিজিটর হারাতে শুরু করবেন আপনি!

আপনার কন্টেন্ট এর কোয়ালিটি বা মার্কেটিং মেথড কেমন সেটা ইম্পর্ট্যান্ট না। মোস্ট ইম্পর্ট্যান্ট থিং ইজ ইউর টাইটেল।

আকর্ষণীয় টাইটেল ব্যবহার করুন। টাইটেল লেখার আগে নিজেকে ভিজিটর এর জায়গায় চিন্তা করুন, “এই টাইটেল দেখার পর আমার কী ক্লিক করতে ইচ্ছা করছে?”।

যদি কোনো ম্যাগাজিন বা অনলাইন নিউজ পোর্টাল দেখেন, তাহলে দেখতে পাবেন তারা কী চটকদার টাইটেল ব্যবহার করছে। ” কীভাবে মাত্র ৬০ দিনে ওজন কমাবেন”, ” হৃদরোগ কমানোর ৫ টি উপায়, ৪ নং উপায় শুনলে অবাক হবেন”।

বেশি না, আপনি সময় নিউজ এর শিরোনাম দেখেন। “মারা গেলেন জয়া আহসান”। কিন্তু ক্লিক করে খবর পড়ার পর দেখলেন, আসলে একটা মুভির সিন এ জয়া আহসানের মৃত্যু হবে! যাই হোক, জোকস এ পার্ট ছিল।

সুন্দর, ৬০-৭০ স্পেস এর টাইটেল ব্যবহার করুন।

ধাপ-২: কমপক্ষে তিনটি ইন্টার্নাল লিংক ব্যবহার করুন

লিংক বিল্ড করা খুবই কঠিন। কিন্তু ইন্টার্নাল লিংক বিল্ডিং করতে বাধা নেই। চেষ্টা করুন কমপক্ষে ৩ টি ইন্টারনাল লিংক ব্যবহার করার।

আর্টিকেল এর মধ্যে মোস্ট রিলেটেড তিনটি আর্টিকেল লিংক আপ করুন, যেটা অলরেডি আপনার ওয়েবসাইট এ আছে। গুগল বা অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন এটা পছন্দ করে৷

এটি খুবই কার্যকরী একটি পদ্ধতি।

উইকিপিডিয়াকে দেখেন। তাদের একটা আর্টিকেল এ ৯০% ইন্টারনাল লিংক থাকে।

এংকর টেক্সট পদ্ধতিতে রিলেটেড তিনটি কন্টেন্ট এর লিংক দেন।

কন্টেন্ট মার্কেটিং ফর্মুলা
এংকর টেক্সট পদ্ধতিতে ইন্টার্নাল লিংকিং (ছবি: উইকিপিডিয়া)

এটি ইনডেক্সিং এ সাহায্য করে। বিশেষ করে নতুন কন্টেন্ট এ রিলেটেড ইন্টার্নাল লিংক ব্যবহার করলে, সার্চ ইঞ্জিন সেটাকে তাড়াতাড়ি ইনডেক্স করে।

ধাপ-৩: যত পারুন সোশ্যাল সাইট এ শেয়ার করুন

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করা বলতে শুধু ফেসবুক এ শেয়ার করা বুঝায় না।

লিংকড ইন, টুইটার, কুয়োরা, পিন্টারেস্ট, ওয়ার্ডপ্রেস বিভিন্ন সোশ্যাল ফোরাম ইত্যাদিতেও শেয়ার করেন।

ফেসবুক পেজ, ফেসবুক গ্রুপ এ শেয়ার করুন। তবে অবশ্যই, যে পেজ বা গ্রুপ এ শেয়ার করবেন, সে পেজ বা গ্রুপ যেন আপনার আর্টিকেল বা নিশ রিলেটেড হয়।

সোশ্যাল শেয়ার
সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করলে এঙ্গেজমেন্ট বৃদ্ধি পায়

তবে কন্টেন্ট আপলোড করার পরপরই শেয়ার মারবেন না। আগে এলগরিদম বুঝুন। কোন প্ল্যাটফর্ম এ কোন কন্টেন্ট শেয়ার করলে বেশি ভিজিটর আসবে সেটা নিয়ে রিসার্চ করুন।

ধাপ-৪: যাদের লিংক দিবেন তাদেরকে ই-মেইল করুম

আর্টিকেল এ ইন্টার্নাল লিংক এর পাশাপাশি এক্সটার্নাল লিংকও দিতে হয়। অর্থাৎ আপনার কন্টেন্ট এর সাথে রিলেটেড অন্য ওয়েবসাইট এর কন্টেন্টকে লিংক দিতে হয়।

সো, যাদের লিংক দিবেন তাদের একটা ই-মেইল করুন। যে ওয়েবসাইটকে লিংক দিবেন, তাদের ই-মেইল ইনফরমেশন কালেক্ট করুন। এটা ওয়েবসাইট এর কন্টাক্ট ইনফরমেশন এ পাবেন।

কীভাবে ই-মেইল করবেন তার একটা টেমপ্লেট দিচ্ছি। এই টেমপ্লেট আমি এসইও এক্সপার্ট নেইল পাটেল এর কাছ থেকে দিচ্ছি।

Hi [insert their first name],

I just wanted to say, I like your content. Especially your article on [insert the name of the article you linked out to]. I linked to it from my latest blog post [insert URL of your blog post].
It would make my day if you checked it out and even shared it on your favorite social network if you enjoyed it.

Cheers, [insert your name]

ই-মেইল করলে কী হবে? যাদের আপনি লিংক দিবেন তারা আপনার কন্টেন্ট শেয়ার করতে পারে। অথবা আপনার সেই কন্টেন্টকে একটা লিংক দিতে পারে।

এতে যেমন আপনার সাইটের অথরিটি বাড়বে, তেমন ঐ ওয়েবসাইট থেকে কিছু ভিজিটরও পেয়ে যাবেন।

জাস্ট একটা ই-মেইল দিয়ে কিছু ভিজিটর ও ডোমেইন অথরিটি পাবেন, তাহলে ই-মেইল করবেন না কেন?

ধাপ-৫: ভিজিটরদের ই-মেইল করুন

যদি আপনার ওয়েবসাইট এ ই-মেইল সাবস্ক্রিপশন থাকে, তাহলে নিশ্চয়ই অনেক ভিজিটর সাবস্ক্রাইব করছে (যদি কন্টেন্ট ভালো লাগে)। তাদের ই-মেইল এর লিস্ট আছে আপনার কাছে।

এখন কোনো কন্টেন্ট আপলোড দেওয়ার পর, তাদের ই-মেইল করুন। তবে একটা কথা, ঘন ঘন ই-মেইল করবেন না। এরে ভিজিটররা বিরক্ত হয়।

যদি আপনি আগে ই-মেইল কালেক্ট না করে থাকেন, আজই শুরু করে দিন। ই-মেইল এর মাধ্যমে কিন্তু অনেক ভিজিটর পাওয়া যায়!

কিছু টুলস ব্যবহার করে আপনি এটা করতে পারবেন। এগুলো ব্যবহার করুন।

ই-মেইল করার ক্ষেত্রে তিনটি জিনিস খেয়াল রাখবেন।

১. লিস্ট সংক্ষিপ্ত করুন: শুধু যারা ব্লগ বা আর্টিকেল পছন্দ করে, তাদের ই-মেইল এর লিস্ট রাখুন৷ এছাড়া যারা ৩০-৬০ দিনের মধ্যেও আপনার পাঠানো ই-মেইল খুলবে না, তাদের ই-মেইল লিস্ট থেকে সরিয়ে ফেলাই ভালো।

২. টেক্সট ই-মেইল পাঠান: সবসময় টেক্সটভিত্তিক ই-মেইল পাঠান। ছবি বা ভিডিও পাঠাবেন না। ইউজার বিরক্ত হবে এতে। গুগল এ সার্চ দিলে কিছু টেমপ্লেট পেয়ে যাবেন আসা করি।

৩. নির্দিষ্ট সময়ে ই-মেইল করুন: ঘন ঘন ই-মেইল না করে একটি নির্দিষ্ট সময়ে ই-মেইল করুন। তবে, একই সময়ে একটা ই-মেইল এ একের অধিক ই-মেইল পাঠাবেন না।

ধাপ-৬: পুশ নোটিফিকেশন পাঠান

পুশ নোটিফিকেশন মানে হলো, কেউ যদি আপনার ওয়েবসাইট এ ঢুকেই বের হয়ে যায়, তাহলে একটা থার্ড পার্টি সেই ইউজারকে নোটিফিকেশন পাঠাবে। যদি কোনো ইউজার ব্লগ পড়ার মাঝখানে বের হয়ে যায়, তখনও প্রোগ্রামটি নোটিফিকেশন পাঠায়।

অনেক ওয়েবসাইট “পুশ নোটিফিকেশন” টুলসটি ব্যবহার করতে চায় না।

পুশ নোটিফিকেশন এর জন্য একটি জনপ্রিয় টুলস হল সাবস্ক্রাইবারস ডটকম

সাবস্ক্রাইবারস ডটকম
সাবস্ক্রাইবার ডটকম এর হোমপেজ

অথচ, এটার মাধ্যমেও অনেক ভিজিটর পাওয়া যায়। পুরোনো ভিজিটরকে ফিরিয়ে আনা যায়।

ই-মেইল পদ্ধতি থেকে এই পুশ নোটিফিকেশন অত্যন্ত কার্যকরী একটি সমাধান।

কন্টেন্ট মার্কেটিং ফর্মুলা: সমাপ্তি

কন্টেন্ট মার্কেটিং বা কোনো কন্টেন্টকে প্রোমোট করা কোনো কঠিন বিষয় না। এর জন্য কোনো কঠিন পদ্ধতি অনুসরণ করতে হয় না৷ প্রচুর টাকা খরচ করতে হয় না, প্রিমিয়াম টুলস লাগে না।

জানেন বিল গেটস বলেছিলেন, “কন্টেন্ট ইজ কিং“। কন্টেন্ট এর মাধ্যমে ভিজিটরকে কাস্টমার এ রুপান্তর করা যায়। ওয়েবসাইট এ ভিজিটর বাড়ানো যায়৷

আপনার কন্টেন্টকে সঠিক উপায়ে প্রোমোট করতে হবে, মার্কেটিং করতে হবে৷ নাহলে ফলাফল শুন্য!

সুতরাং, কন্টেন্ট তৈরি করে আপলোড করে সময় নষ্ট করবেন না। যত পারেন এটা প্রোমোট করুন!

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *