স্টিভ জবস

স্টিভ জবস: একজন ফাস্ট মুভিং উদ্যোক্তা

আপনি জানেন বিপ্লব কাদের হাত ধরে হয়? বিপ্লব হয় তাদের হাতে যারা সাধারণ মানুষ থেকে দুই ধাপ এগিয়ে চিন্তা করে। তাদের হাত ধরে যাদের দুরের ভিসন দেখার মত চোখ আছে। তাদের হাত ধরে যারা আইডিয়া প্রাধান্য না দিয়ে এক্সিকিউশনকে প্রাধান্য দেন। এমন একজন মানুষ স্টিভ জবস ।

স্টিভ জবস
SAN FRANCISCO – JANUARY 11: Apple CEO Steve Jobs delivers a keynote address at the 2005 Macworld Expo January 11, 2005 in San Francisco, California. (Photo by Justin Sullivan/Getty Images)

স্টিভ জবস, যার হাত ধরে প্রযুক্তি জগতে একটা বিপ্লব ঘটেছিল। পারসোনাল কম্পিউটার বিপ্লবের পথিকৃৎ তিনি।

উদ্ভাবনী চিন্তাভাবনা, আর একই মন মানসিকতা সম্পন্ন বন্ধু থাকলে পৃথিবীতে কী কী করা যায় তার উদাহারণ রেখে গেছেন স্টিভ জবস।

স্টিভ জবস এতটাই দুরদর্শি মার্কেটার ও উদ্যোক্তা ছিলেন যে, ২০১১ সালের আগস্টে তিনি পদত্যাগ এর ঘোষণা দেন। এর কয়েক ঘন্টার মধ্যে শেয়ার মার্কেট এ  অ্যাপলের পাঁচ শতাংশ দরপতন হয়৷

স্টিভ জবস এর জন্ম ও ছেলেবেলা

জবস এর পুরো নাম স্টিভেন পল জবস। ১৯৫৫ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারী যুক্তরাষ্ট্রের সান ফ্রান্সিসকোতে জন্মগ্রহণ করেন। তার প্রকৃত পিতা-মাতা ছিলেন জোয়্যান ক্যারোল ও আব্দুল্লাহ ফাতাহ জান্দালি। পরে পল জবস ও ক্লারা জবস স্টিভ জবসকে দত্তক নেন। তারাই নামকরণ করেন স্টিভেন পল জবস৷

ছোটবেলা থেকে তার প্রখর বুদ্ধিমত্তা প্রকাশ পেতে থাকে। হাই স্কুলে থাকাকালীন সময়ে তিনি স্টিভ ওজনিয়াক এর সাথে গ্রীষ্মকালীন কর্মচারী হিসেবে কাজ করেন।

ভারত ভ্রমণ

১৯৭৪ সালে জবস ভারত ভ্রমণ করেন। এর আগে ক্যালিফোর্নিয়ার লস গ্যাটোসে কর্মী হিসেবে কর্মরত ছিলেন। সাত মাস পর তিনি ক্যালিফোর্নিয়ায় চলে আসেন। তারপর ১৯৭৩-১৯৭৬ সাল পর্যন্ত স্টিভ জবস ও স্টিভ ওজনিয়াক বিভিন্ন কাজ করেন। যার অভিজ্ঞতা অ্যাপল কম্পিউটার তৈরিতে অনেক কাজে এসেছিল।

অ্যাপল প্রতিষ্ঠা

অ্যাপল কম্পিউটার, মাল্টি বিলিয়ন ডলারের ইন্ডাস্ট্রি। কিন্তু জানেন? এই কোম্পানির স্টার্টআপ হয়েছিল একটি গ্যারেজ থেকে?

ক্যালিফোর্নিয়ার লস অল্টোসে ক্লারা ও পল জবস এর বাড়ির গ্যারেজে অ্যাপল কোম্পানি স্টার্ট করেন স্টিভ জবস ও স্টিভ ওজনিয়াক। সময়টা তখন ১৯৭৬ সাল।

তাদের সাথে ছিলেন আরেকজন কর্মঠ দুরদর্শি উদ্ভাবনী ক্ষমতা সম্পন্ন মানুষ রোনাল্ড ওয়েন। ওয়েন অবধ্য অল্প কিছুদিন অ্যাপল এর সাথে ছিলেন।

অ্যাপল এর লোগো
অ্যাপল এর লোগো (ছবি www.apple.com থেকে সংগৃহীত)

সার্কিট বোর্ড ক্রয় বিক্রয়ের মধ্য দিয়ে চালু হয় অ্যাপল। কিন্তু অ্যাপল প্রতিষ্ঠার পিছনে বড় কারণ ছিল অ্যাপল ১ কম্পিউটার।

Apple 1
অ্যাপল -১ কম্পিউটার

১৯৭৬ সালে যখন স্টিভ ওজনিয়াক একক প্রচেষ্টায় অ্যাপল -1 তৈরি করেন, স্টিভ তখন তা বিক্রি করার পরামর্শ দেন। তখন তারা রোনাল্ড ওয়েনকে নিয়ে তাদের গ্যারেজেই তৈরি করলেন “অ্যাপল কম্পিউটার কোম্পানি”।

১৯৮০ সালের প্রথম দিকে স্টিভ জবস একটি সম্ভাবনার দুয়ার খুজে পান। তিনি জেরক্স এর গ্রাফিকাল ইউজার ইন্টারফেস এর বাণিজ্যিক সম্ভাবনা দেখতে পান। এর সাহায্যে তিনি ” অ্যাপল লিসা” তৈরি করেন।

পরের বছর উদ্ভাবন হয় “ম্যাকিন্টশ”। যেটি ১৯৮৪ সালে স্টিভ জবস উৎসাহী দর্শকের সামনে উন্মোচন করেন।

অ্যাপল থেকে বহিষ্কার: জবস এর জীবনে শ্রেষ্ঠ ঘটনা

২০০৫ সালে স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটির সমাবর্তন অনুষ্ঠানে বলেছিলেন অ্যাপল থেকে বহিষ্কারের ঘটনাই ছিল তার জীবনে শ্রেষ্ঠ ঘটনা।

১৯৮৪ সালে তাকে ম্যাকিন্টশের বিভাগের প্রধানের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে ফেলা হয়। পরে তিনি কাজে আসাই বন্ধ করে দেন।

সোভিয়েত ইউনিয়ন এ নতুন একটি কম্পিউটার কোম্পানি তৈরি করার উদ্দেশ্য নিয়ে পরে তিনি অ্যাপল থেকে সম্পুর্ন পদত্যাগ করেন।

নেক্সট ইনকো. (NeXt inc.) প্রতিষ্ঠা

অ্যাপল থেকে বের হয়েই স্টিভ জবস প্রতিষ্ঠা করেন নেক্সট ইনক. (NeXt inc.)। যেটি কম্পিউটার জগতে বিপ্লব ঘটিয়েছিল। তবে অধিক মূল্যের কারণে নেক্সট এর কম্পিউটার বাজারে তেমন সুবিধা করতে পারে নি।

উল্লেখ্য, স্যার টিম বার্নাস লী নেক্সট এর একটি কম্পিউটারেই WWW আবিষ্কার করেন।

১৯৮৬ সালে জবস ১০ মিলিয়ন ডলারে পিক্সার নামে একটি গ্রাফিক্স গ্রুপ ক্রয় করেন।
ডিজনির সাথে মিলে জবস নিজের প্রযোজনায় তৈরি করেন এনিমেশন মুভি টয় স্টরি।

অ্যাপল এ ফিরে আসা

এরপর ১৯৯৬ সালে অ্যাপল ঘোষণা করে নেক্সট কোম্পানি কিনে নেওয়ার জন্য। ৪২৭ মিলিয়ন ডলার দিয়ে অ্যাপল কিনে নেয় নেক্সটকে।

অ্যাপল এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা আবার ফিরে এলেন। কিন্তু তখন অ্যাপল এর অবস্থা তেমন ছিল না।

১৯৯৭ সালে জবস অ্যাপল এর অন্তবর্তীকালীন প্রধান নির্বাহীর পদ পেয়ে যান।

তারপর তিনি অ্যাপল কে আবার লাভজনক প্রতিষ্ঠান হিসেব্ব গড়ে তুলার উদ্যোগ নেন। বেশ কয়েকটি প্রজেক্ট তিনি স্থগিত করে নেন।

জবস এর তত্ত্বাবধানে বেশ কয়েকটি পণ্য বাজার ধরে রাখে। যেমন ম্যাক ওএস, আইম্যাক, আইপড, আইটিউন ইত্যাদি। কয়েক মাসের মধ্যে আবারো অ্যাপল হয়ে উঠে অন্যতম একটি লাভজনক প্রতিষ্ঠান।

২০০৭ সালে স্টিভ জবসের নির্দেশনায় শুরু হয় সেলফোন বিপণন। ২০০৭ সালের ২৭ জুন উন্মোচন হয় আইফোন এর। বিশ্বে খুবই কম মানুষ আছে যারা আইফোন এর নাম শুনে নি।

সদিচ্ছা ও অসুস্থতার কারণে পুনরায় পদত্যাগ

২০১১ সালে স্টিভ জবস আবার পদত্যাগ এর ঘোষণা দেন। তবে সেটা ছিল সদিচ্ছায়। এই ঘোষণার কয়েক ঘন্টার মধ্যে শেয়ার মার্কেটে অ্যাপল এর দরপতন শুরু হয়। তিনি ডিজনির পরিচালক ছিলেন৷ পদত্যাগ এর ঘোষণায় ডিজনির ১.৫% দরপতন ঘটে, যেখানে অ্যাপল এর ৫% ঘটেছিল!

স্টিভ জবস এর মোট সম্পত্তির পরিমাণ

ফোবর্সের মতে স্টিভ জবস এর মোট সম্পত্তি ছিল ৮.৩ বিলিয়ন ডলার। অ্যাপল কোম্পানিতে তার ২.১ বিলিয়ন ডলারের সমপরিমাণ শেয়ার ছিল। প্রধান নির্বাহী হিসেবে বছরে ১ মিলিয়ন ডলার সম্মানি নিতেন। তিনি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের ৪২ তম শ্রেষ্ঠ ধনী ব্যাক্তি। ২০১১ সাল পর্যন্ত তার নামে প্রায় ৩৪২ টি পেটেন্ট ছিল!

মৃত্যু

স্টিভ জবস অগ্নাশয়ের ক্যান্সারে ভুগছিলেন। তার অসুস্থার খবরে অ্যাপল এ নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছিল। ২০১১ সালের ৫ অক্টোবর তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

কনক্লুশন

তার দাম্পত্য সঙ্গী ছিলেন লরেন পাওয়েল। তার ৪ জন সন্তান আছেন।

স্টিভ জবস এক বিপ্লবের নাম। কিছু মানুষ ইতিহাস পড়ার জন্য আসে। স্টিভ জবস এসেছিলেন ইতিহাস গড়ার জন্য। তার হাতে গড়া অ্যাপল আজ বিশ্বের অন্যতম মাল্টি বিলিয়ন ডলারের ইন্ডাস্ট্রি!

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *